তৃষ্ণাতুর

নির্মল বাংলাদেশ?

নির্মল বাংলাদেশ একটি স্বেচ্ছাসেবা প্রদানকারী সামাজিক উন্নয়ন অংশীদারি একটি অলাভজনক প্রতিষ্ঠান। নির্মল বাংলাদেশ তার প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে বিভিন্ন ভাবে চেষ্ঠা করে যাচ্ছে।

তৃষ্ণাতুর কি ও এর প্রেক্ষাপট?

তৃষ্ণাতুর হলো নির্মল বাংলাদেশ কর্তৃক প্রকাশিত বার্ষিক সাহিত্য সংকলন। যা গত ২০২০ সালের অমর একুশে গ্রন্থমেলা হতে প্রথমবারের মত প্রকাশিত হয়। নির্মল বাংলাদেশ বিশ্বাস করে এদেশের প্রতিভাবান তরুনদের মধ্যেই আছে আগামির বাংলাদেশের অমিত সম্ভাবনা। তাই এদেশের তরুন প্রতিভাবনদের সুপ্ত প্রতিভাবে আরো বিকশিত করতে একই সাথে তাদের মেধাকে দেশীয় এবং আন্তর্জাতিক পরিমন্ডল থেকে স্বীকৃতি এনে দিতে নির্মল বাংলাদেশের তৃষ্ণাতুর প্রকাশ করা।

তৃষ্ণাতুর প্রকাশএর উদ্দেশ্য প্রয়োজনীয়তা?

নির্মল বাংলাদেশ বিশ্বাস করে তৃষ্ণাতুরের মাধ্যমে বাংলাদেশ আগামী প্রজন্মের একজন জহির রায়হান, হুমায়ন আহমেদের মতো লেখকদের পাবে। আমরা চাই তরুন লেখকগন স্বতঃস্ফুর্ত অংশগ্রহনের মাধ্যমে প্রতিভা বিকাশের সুযোগ পাবে।

Privacy & Policy

নির্মল বাংলাদেশ তার সকল সদস্যদের ব্যাক্তিগত সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে। আপনার সকল তথ্য আমাদের নিকট অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাই সকল গ্রাহকদের সকল তথ্য গুপনীয়তার সাথে নিরপত্তা দেওয়া হবে।

Trishnatur

লেখা জমা দেওয়ার সম্পর্কে বিস্তারিত

আমি কিভাবে এখানে নিজের লেখা জমা দিবো?

তৃষ্ণাতুরের ২০২১ সালের সংকলনে আপনার লেখা প্রকাশ করতে যা করতে হবেঃ

  • নির্মল বাংলাদেশের ওয়েব সাইটের “Writing Submission” পেইজে “Request for Submission ID” এর জন্য আবেদন করুন।
  • আবেদন এর শেষ ধাপে Submission Fee বিকাশের মাধ্যমে প্রদান করুন।
  • এর পর আবেদন ফি প্রদানের “ট্রানজেকশন আইডি/ Transaction ID” দিয়ে আবেদন সমাপ্ত করুন।
  • আপনার আবেদনের পরবর্তী ২৪ ঘন্টার মধ্যে আপনার মোবাইল নম্বরে Writer’s Submission ID টি SMS করে পাঠানো হবে।
  • একটি Submission ID ব্যবহার করে আপনি সর্বোচ্চ ৫টি লেখা জমা দিতে পারবেন।

আমাকে কত টাকা সাবমিশন ফি দিতে হবে?

প্রতি ৫টি লেখা জমা দেওয়ার জন্য আপনাকে ১০০ টাকা করে জমা দিতে হবে।

আমাকে কেন লেখা জমা দিতে সাবমিশন ফি দিতে হবে?

নির্মল বাংলাদেশ তার সকল কার্যক্রম আপনাদের সরাসরি সহায়তায় (আর্থিক/শ্রম/মেধা) বাস্তবায়িত হয়। আর প্রতিনিয়ত আমাদের বিশাল এই কার্যক্রম চালিয়ে নিতে অনেক অর্থের প্রয়োজন হয়, যা মূলত বিভিন্ন দাতা ব্যাক্তি/প্রতিষ্ঠান বা নানা ধরনের প্রোগ্রামের মাধ্যমে এসে থাকে। একই ভাবে প্রতিবছর “তৃষ্ণাতুর” প্রকাশে বড় অংকের অর্থ খরচ হয়ে যায়।

আপনারদের নিকট থেকে সাবমিশন ফি যেটি নেওয়া হচ্ছে তা দিয়ে আমাদের বইটি প্রকাশিত হবে না। আপনাদের নকট থেকে স্বল্প এই অর্থ নেওয়া হচ্ছে ডোনেশন হিসেবে। আপনার লেখাটি বিনামূল্যেই প্রকাশিত হবে। বরং আপনার নিকট হতে প্রাপ্ত অনুদান টি ইনশাআল্লাহ সমাজের অসহায়, দরিদ্র এবং সামাজিক উন্নয়নমূলক কোন কাজে ব্যয় হবে।

আপনার লেখা নির্বাচিত না হলে এটা ভাববে না যে আপনার টাকা গুলো নষ্ট হলো। বরং আপনাদের সবার দানে সমাজের একটা উপকার হবে ভাবতে পারেন। আমরা আবার কথা্ দিচ্ছি, আপনার টাকা গুলো অপচয় হবে না, সামাজিক উন্নয়ন ও জনস্বার্থে কাজে লাগবে।

 

কি ভাবে সাবমিশন ফি জমা দিবো?

সাবমিশন ফি জমা দেওয়া যাবে বিকাশ/রকেট/নগদে। জমা দিতে এই ধাপ গুলো অনুসরন করুনঃ

Go to Bkash/Nagad/Rocket

Send Money

Type Number: 01757424035 

Amount: 100 

PIN 

SEND

সাবমিশন আইডি কি?

আপনার মূল্যবান টাকা আমরা বুঝে পেয়েছি এটা আপনাকে INSURE করার জন্য ,নির্মল বাংলাদেশ এর ইনফরমেশন টিম আপনাকে একটা ID প্রদান করবেন. এটি মূলত আপনার সাবমিশন ID.

কিভাবে আমি সাবমিশন আইডি পাবো?

সাবমিশন ফি জমা দেওয়ার পর নির্মল বাংলাদেশ এর ইনফরমেশন টিম আপনাকে একটা ID প্রদান করবেন. এটি মূলত আপনার সাবমিশন ID

সাবমিশন ফি দিলেই কি আমার লেখা প্রকাশিত হবে?

আপনারদের নিকট থেকে সাবমিশন ফি যেটি নেওয়া হচ্ছে তা দিয়ে আমাদের বইটি প্রকাশিত হবে না। আপনাদের নিকট থেকে স্বল্প এই অর্থ নেওয়া হচ্ছে ডোনেশন হিসেবে। আপনার লেখাটি বিনামূল্যেই প্রকাশিত হবে। বরং আপনার নিকট হতে প্রাপ্ত অনুদান টি ইনশাআল্লাহ সমাজের অসহায়, দরিদ্র এবং সামাজিক উন্নয়নমূলক কোন কাজে ব্যয় হবে।

 আমার লেখা প্রকাশিত না হলে কি আমি টাকা ফেরত পাবো?

 

আপনার লেখা নির্বাচিত না হলে এটা ভাববে না যে আপনার টাকা গুলো নষ্ট হলো। বরং আপনাদের সবার দানে সমাজের একটা উপকার হবে ভাবতে পারেন। আমরা আবার কথা্ দিচ্ছি, আপনার টাকা গুলো অপচয় হবে না, সামাজিক উন্নয়ন জনস্বার্থে কাজে লাগবে।